পাকিস্তান ইন্ডিয়া বডার

এখানে বিদেশীদের জন্য আলাদা ভাবে বসার যায়গা দেয়।

তবে পাসর্পোটের ফটোকপি এবং বাংলাদেশ আইডি কার্ড থাকা ভালো মোবাইলে দেখাতে হয়। কারন আমাদের কথা দেখতে ওদের মত। তাই বললেও বিশ্বাস করে না। তাছাড়া এখানে মোবাইল,ছাতা,পানি ছাড়া কিছুই নিতে দেয় না। গতবার যখন গিয়েছিলাম তখন লোকাল পিপুলদের সাথে বসে দেখে ছিলাম সেটা খুবই বাজে ছিল। তাই ওখানে ঢোকা সময়ই বলতে হবে আমি বিদেশী।ভীড় ছাড়াই আরামসে নিজ স্থানে বসে যেতে পারবো।

যাই হোক, গতবারও আমার এই যায়গাটা ভালো লাগেনি এবারও না। এবার শুধু রানা আর বাচ্চাদের দেখাব বলে এসেছিলাম।কিন্তু দুঃখের বিষয় ওদের এই ব্যাপারটা চোখে পড়েছে বিধায় কারোরই ভালো লাগেনি।কারণ এটাই, এরা বলে দুই দেশের সাথে প্রতিদিনবিকেলে বন্ধুত্ব করি, কিন্তু ইন্ডিয়ান পিপুলরা এত জোড়ে চিৎকার করে যে বোঝাতে চায় আমরাই সব ওদের কিছুই শুনতে চাই না। আমরাই শক্তিশালী। অপর দিকে পাকিস্তানীরা আযান, সূরা, নারায়ন তাকবির বলে শুরু করে কোন চিৎকার বা উসকানিমূলক আচরন করে না।কিন্তু ওরা শুরু করলেই এরা আরো অনেক জোড়ে চিৎকার জুড়ে দেয়। অর্থাৎ তোদের কিছু শুনিনা।

সব মিলিয়ে আমার কাছে মনে হলো দু দেশের বন্ধু নয় শত্রু।

আমরা দৃষ্টিভঙ্গি, আমার মনে হলো তাই মনের মধ্যে চাপিয়ে না রেখে বন্ধুদের সাথে সেয়ার করলাম।অন্যদের কাছে সেটা নাও হতে পারে 😔😔😔

## সত্যি বলতে ঊনত্রিশ বছর ধরে ভারত বর্ষ সফর করছি।

এমনকী কোন কোন বছরে দুই তিন বারও এসেছি। এদেশকে পছন্দের কারণ,,,,

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য১০০% 😄

পোশাক১০০% 😄

খাবার১০০% 😁

অর্নামেনস১০০% 😀

জনগন২০% 😒

Share on Social

3 thoughts on “পাকিস্তান ইন্ডিয়া বডার

Leave a Reply

Your email address will not be published.