টেলিভীষণ

# টিভি দেখা #

ছোটবেলার কথা। ড্রইংরুমে সবাই মিলে টিভি দেখা হতো। আব্বু বলতো,” একসাথে বসে টিভি দেখলে পরিবারের একে অপরের মধ্যেহৃদ্রতা বাড়ে। নানান রকম বিষয় নিয়ে কথা হয়।তখন শুধুই সাদা কালো বিটিভি।চ্যেনেলও একটা।বিকাল ৫টায় আল কোরআন তিলাওয়াত থেকে রাত ১২টা লাল সবুজের পতাকা দিয়ে শেষ।তারপর ১৯৮১ সনে আব্বু বেলজিয়াম থেকে নিয়ে এলো রঙিন ৩০টা চ্যানেলের টিভিশুরুহয়ে গেল আমাদের তিন ভাইবোনদের মাঝেগন্ডগোল। কারণ,,,,,,কেউ দেখবে খেলা, কেউ নাটক বা কেউ সিনেমা।আর যার হাতে রিমোট সেই রাজা। দুঃখের ঠ্যেলায় বলতাম,”নিজের রুমে টিভি কিনে আরামে দেখবো।☺️

ছোটবেলার সেই অভাব পূরণ করতেই প্রায় প্রতিটা ঘরেই টিভি দিলাম।সবাই খুসি যার যা ইচ্ছে দেখ আমিও খুসি। এছাড়া কম্পিউটার, ট্যাব, এফবি এসব তো আছেই 😃।চলতে থাকলো দিন মাস বছর,,,,,,, দারুণ সময় কেটে যাচ্ছে 💖

হটাৎ একদিন অনুভব করলাম, সবাই সবার মত যার যার ঘরে ব্যস্ত। টেবিলে না খেয়ে খাবার নিয়ে চলে যাচ্ছে যার যার ঘরে😳।পড়া লেখা শেষ করে যে যার মত টিভিতে😳 রানা অফিস থেকে এসে খেলা আর খবর নিয়ে টিভিতে 😳 গুড়াটাও কার্টুন নিয়ে নিজের মত 😳 যে যার মত জগতে !!!

হায় আল্লাহ,এটা আমি কি করলাম!!!!!!!!!!!

তারপর ভাবতেই একদিন একটা বাদে বাকি সব ঘরের টিভির লাইন খুলে দিলাম 😃 বাচ্চাদের ট্যাব মোবাইল ল্যাপটপ বন্ধ করে দিলাম 😃

যথা সময় বাড়ীতে সবাই এলে দেখে কী ব্যাপার টিভির নো কানেকশন !!!!

রাতের খাবার দিতেই সবাইকে বললাম, এখন থেকে টেবিলে সবাই খেতে আসবে, আর ড্রইংরুমে শুধু টিভি চলবে। ট্যাব মোবাইল ২৪ ঘন্টার মধ্যে ঘন্টা 😏

রিমোট এখন আমার হাতে 😃

কিছুদিন পর,,,,,,,,সবাই এক ঘরে ♥️

রানা,” আজকের খবরটা দেখার দরকার

আলিফখেলার খবরটা কী দেখিনা

মাইশা,” কোরিয়ান ড্রামাটা অনেক সুন্দর ছিল।

আরিক,” কার্টুনটা মিস হয়ে গেল।

বললাম,”যেটা ভালো সেটা সবাই মিলে দেখব।যার যা পছন্দ সেটাও সময় ভাগ করে নিব।এতে করে পরিবারেরএকে অপরের মধ্যে হৃদ্রতা বাড়ে।

😃😃😃😃😃😃😃😃

আমি ফিরে গেলাম আমার ছোটবেলায়। ♥️

Share on Social

2 thoughts on “টেলিভীষণ

Leave a Reply to মোঃশরিফ Cancel reply

Your email address will not be published.